ENGLISH  |  ARABIC  |  NNBDJOBS  |  BLOG
সর্বশেষ:

এনএনবিডি ডেস্ক

৩ জুলাই ২০২১, ২০:০৭

সাত কলেজের শিক্ষার্থীদের টিকা পেতে অনিশ্চয়তা

18979_download (2).jpg
সংগৃহীত ছবি

পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় ও উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক শিক্ষার্থীদের করোনার টিকা দেয়ার তালিকায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অধিভুক্ত সরকারি সাত কলেজের শিক্ষার্থীদের নাম নেই। এতে প্রায় ৩০ হাজার শিক্ষার্থীর টিকা পেতে অনিশ্চয়তা তৈরি হয়েছে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত হওয়া সাত কলেজ ঢাকা কলেজ, ইডেন মহিলা কলেজ, সরকারি শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজ, কবি নজরুল সরকারি কলেজ, বেগম বদরুন্নেসা সরকারি মহিলা কলেজ, মিরপুর সরকারি বাঙলা কলেজ ও সরকারি তিতুমীর কলেজ। এই কলেজগুলোতে প্রায় ৩০ হাজার আবাসিক শিক্ষার্থী রয়েছে।

দেশের সব পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় ও জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক শিক্ষার্থীদের টিকা প্রাপ্তি নিশ্চিতের পর হল খুলে দেওয়ার পরিকল্পনা রয়েছে। সেই অনুযায়ী বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) নির্দেশনা থাকলেও টিকা পাওয়ার তালিকায় সাত কলেজের নাম নেই।

জানা গেছে, শিক্ষার্থীদের লেখাপড়ার ক্ষতি কমিয়ে আনতে আবাসিক শিক্ষার্থীদের তালিকা চেয়ে সংশ্লিষ্ট বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের কাছে চিঠি দেয় ইউজিসি। ওই চিঠির ভিত্তিতে সরবরাহ করা তালিকার ধরে বৃহস্পতিবার থেকে দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের টিকাদান কর্মসূচির জন্য নিবন্ধন শুরু করেছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। কিন্তু সেই তালিকায় সাত কলেজের শিক্ষার্থীদের নাম নেই।

সংশ্লিষ্ট তথ্য মতে, প্রাথমিক অবস্থায় অগ্রাধিকার ভিত্তিতে দেশের ৩৮ বিশ্ববিদ্যালয়ের ১ লাখ ৩ হাজার ১৫২ জন আবাসিক শিক্ষার্থীর তালিকা দিয়েছে ইউজিসি। সেই তালিকা অনুযায়ী শিক্ষার্থীদের নিবন্ধন কার্যক্রম শুরু হয়েছে।

ঢাকা কলেজের আবাসিক শিক্ষার্থী মাহমুদুল হাসান বলেন, দেশের বিভিন্ন পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় ও জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক শিক্ষার্থীরা যখন টিকার জন্য আবেদন করছে তখন আমাদের কাছে তথ্যই চাওয়া হয়নি।

অধিভুক্ত সরকারি সাত কলেজের প্রধান সমন্বয়ক ও ঢাবির উপ-উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক ড. এ এস এম মাকসুদ কামাল বলেন, ইউজিসি বিশ্ববিদ্যালয়ের কাছে আবাসিক শিক্ষার্থীদের তালিকা চেয়েছে। আমরা আমাদের আবাসিক শিক্ষার্থীদের তালিকা পাঠিয়েছি। সাত কলেজের শিক্ষার্থীদের বিষয়ে আমরা কিছু জানি না।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত সরকারি সাত কলেজের সমন্বয়ক ও ঢাকা কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক সলিমুল্লাহ খোন্দকার বলেন, শিক্ষা মন্ত্রণালয় বা ঢাবি কেউ আমাদের কাছে কোনো ধরনের তথ্য চায়নি। কেন সাত কলেজ শিক্ষার্থীদের তালিকা হয়নি বিষয়টি জানা নেই। এব্যাপারে মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে কথা বলা হবে।