ENGLISH  |  ARABIC  |  NNBDJOBS  |  BLOG
সর্বশেষ:
ব্রেকিং নিউজ

নিউজ ডেস্ক

৮ জানুয়ারি ২০২২, ১১:০১

বিষাক্ত বাংলাদেশ, বিষের কারখানা ঢাকা!

23671_Dhaka]ৎ.jpg
বিগত ৩ বছরে সবচেয়ে দূষিত শহরের দিক থেকে শীর্ষ অবস্থান ধরে রাখার ক্ষেত্রে হ্যাট্রিক করেছে আমাদের রাজধানী ঢাকা। অথচ তা নিয়ে সামান্যতম কোন শব্দই নেই। বিরোধীদলগুলো তো কীভাবে ক্ষমতায় যাবে সে চিন্তায় ব্যস্ত, এসব নিয়ে কে দেখবে, আর সাধারণ মানুষ তো নিজের চিন্তায় ব্যতিব্যস্ত।

সমাজ সেবা করতে চান? সমাজ পরিবর্তন করতে চান?? অন্তত মানুষের শ্বাস নেয়ার স্বাভাবিক যে অধিকার সেটি নিয়েই কথা বলুন। এ বিষয়ে কোন কথা, না আছে দেশের এলিট সমাজের মধ্যে, না আছে শিক্ষিত সমাজে আর না আছে বিরোধীদলসমূহের মধ্যে।

বিশ্বের সবচেয়ে জনবহুল এলাকাতে মানুষ কীভাবে শ্বাস নিচ্ছে তা সত্যিই এক বিস্ময়!!

বিশেষজ্ঞদের মতে, মাথার চুলের চেয়ে ১০০ ভাগ হাল্কা PM 2.5 এর কারণেই দূষণের মাত্রা এত বেশি। দূষণের জন্য PM 2.5 এর পাশাপাশি আর ছয়টি ছয় ধরনের পদার্থ ও গ্যাসকে দায়ী করা হয়। যেগুলো হচ্ছে-

- ক্ষুদ্র PM 2.5
- PM 10
- সালফার ডাই-অক্সাইড,
- নাইট্রোজেন,
- কার্বন মনোক্সাইড এবং
- সিসা।

এসব গ্যাস এবং পদার্থের আলোকেই বাতাসের দূষণ পরিমাপ করা হয়। বিগত কয়েক বছরে ঢাকা সেই সূচকের শীর্ষে অবস্থান করছে।

সেদিন তুরস্কের রাজধানী আনকারার বাতাসের দূষণ ৫০ অতিক্রম করার কারণে দেখি জাতীয় লাইব্রেরীর সামনে মানববন্ধন করছে বিভিন্ন সংগঠন। ভার্সিটিতে এসব নিয়ে সর্বদাই কথা হচ্ছে। বিরোধীদলগুলোও কথা বলে সরকারকে প্রেশারে রাখছে।

অথচ, আমাদের সবুজ শ্যামল এই বাংলাদেশের অবস্থা এতই নাজেহাল যে, বাতাসের দূষণের পরিমাণ ৩০০ অতিক্রম করার পরেও বিরোধীদলগুলো যেন এ বিষয়ে যেন লজ্জা পাচ্ছে। বিরোধীদলগুলো এতই দুর্বল যে এসব নিয়ে কথা বলার কোন গুরুত্বই দেখে না।
যে দেশে বিরোধীদলগুলো যত শক্তিশালী সে দেশে উন্নয়নের মাত্রাও তত বেশী হয়। যখন বিরোধীদল গুলো হয়ে যায় ভেজা বেড়াল, তখন সামান্য মেষও হয়ে উঠে সিংহ।

হয়তো তরুণদের দ্বারা পরিবর্তন হবে সবুজ শ্যামল এই বাংলার। সেই আশাতেই কেবল বাঁচতে হবে। কেননা মানুষ বাচে আশায়, দেশ বাচে ভালোবাসায়।

বাংলার তরুণেরা একদিন এই ঢাকা শহরকে ভালোবাসতে শিখবে সত্যিকার অর্থেই এবং নতুন এক বাসযোগ্য ঢাকা গড়ে তুলবে সেটিই এখন প্রত্যাশা।

লেখক: abid ihsan

ফেসবুক থেকে নেয়া।