ENGLISH  |  ARABIC  |  NNBDJOBS  |  BLOG
সর্বশেষ:
ব্রেকিং নিউজ

এনএনবিডি ডেস্ক

৮ ডিসেম্বর ২০২১, ১৮:১২

এক এলাকার ভোটার অন্য এলাকা থেকে ইউপি সদস্য নির্বাচিত!

22794_jhjjjj888787.jpg
তথ্য গোপন করে ভোটে জয়ী হওয়ার ঘটনার ৯ দিন পর গেজেট বাতিলের দাবি জানিয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তার কাছে আবেদন করেছেন দুই ’পরাজিত প্রার্থী মোহাম্মদ হোসেন বাবুল ও জাকির হোসেন। সোমবার তারা এ অভিযোগ করে।

দু’প্রার্থী তাদের অভিযোগে জানান, মোঃ হাসান পাটোয়ারী রামগঞ্জ উপজেলার ২ নম্বর নোয়াগাঁও ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি, জাতীয় পরিচয়পত্র অনুযায়ী তিনি একই ইউনিয়নের ৫ নম্বর ওয়ার্ড সাউদেরখীল গ্রামের ভোটার। বাবার নাম গোলাম হোসেন বাবুল, মায়ের নাম আনোয়ারা বেগম। জাতীয় পরিচয়পত্র নং ৫১০৫১৯০০০২৯৮, ভোটার এলাকার কোড নং ০৫১৯। কিন্তু তথ্য গোপন করে গত ২৮ নভেম্বর স্থানীয় সরকার (ইউনিয়ন পরিষদ) নির্বাচনে পাশ্ববর্তী ৬ নম্বর ওয়ার্ড শৈরশৈ গ্রাম থেকে মোরগ প্রতীকে নির্বাচিত হন হাসান পাটোয়ারী।
এ বিষয়ে সোমবার বর্তমান ইউপি সদস্য মোহাম্মদ হোসেন বাবুল ও জাকির হোসেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নিকট প্রয়োজনীয় কাগজপত্রসহ একটি অভিযোগ জমা দিয়েছেন।

মোহাম্মদ হোসেন বাবুল ও জাকির হোসেন আরো জানান, গত ২৮ নভেম্বর তৃতীয় দফায় রামগঞ্জ উপজেলার ১০টি ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত নির্বাচনে নোয়াগাঁও ইউনিয়নের ৬ নম্বর ওয়ার্ড শৈরশৈ থেকে বর্তমান ইউপি সদস্য মোহাম্মদ হোসেন বাবুল (ভ্যানগাড়ী), জাকির হোসেন (ফুটবল), দেলোয়ার হোসেন (আপেল), আবুল কালাম (তালা) ও হাসান পাটোয়ারী (মোরগ প্রতীকে) নির্বাচনে অংশগ্রহণ করেন। পরে ভোটার তালিকা ও জাতীয় পরিচয়পত্র সংগ্রহ করলে তাতে গড়মিল দেখা যায়।

এ বিষয়ে মঙ্গলবার জেলা প্রশাসক, জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা, উপজেলা নির্বাচন ও রিটানিং কর্মকর্তার কাছে একটি অভিযোগ দায়ের করেন তারা।
এ সময় তারা স্থানীয় সরকার (ইউনিয়ন পরিষদ) আইন ২০০৯ এর ২৬ (১) এর (ঘ) ধারা লঙন করে ভোটার তালিকার তথ্য গোপন করে ২ নম্বর নোয়াগাঁও ইউনিয়ন পরিষদের ৬ নম্বর ওয়ার্ড থেকে সদ্য নির্বাচিত ইউপি সদস্যের গেজেট স্থগিতকরণসহ প্রার্থীতা বাতিলের দাবি জানান।উক্ত ওয়ার্ড থেকে নির্বাচনে জয়ী হওয়া ইউপি সদস্য হাসান পাটোয়ারী জানান, আমি মূলত শৈরশৈ ওয়ার্ডের ভোটার, কিন্তু জাতীয় পরিচয়পত্রে ভুলক্রমে আমার ভোটার এলাকা সাউধেরখীল হওয়ায় ঝামেলা দেখা দিয়েছে।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও রিটার্নিং কর্মকর্তা মোঃ আবু তাহের জানান, আমি ঘটনাটি জানতে পেরেছি। এ বিষয়ে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সাথে কথা বলে পরবর্তীতে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

রামগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তাপ্তি চাকমা জানান, এ ব্যপারে একটি অভিযোগ পেয়েছি। অভিযোগের আলোকে উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও রিটানিং কর্মকর্তাকে নিদের্শনা দেয়া হয়েছে। এছাড়া নির্বাচন কমিশনের সিদ্ধান্ত অনুসারে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে বলেও তিনি জানান।