ENGLISH  |  ARABIC  |  NNBDJOBS  |  BLOG
সর্বশেষ:

মো. গোলাম আযম সরকার (রংপুর)

৭ অক্টোবর ২০২১, ১৩:১০

আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রার্থীদের ম্যারাথন দৌড়, জামায়াত-বিএনপিও সরব

21042_7110.jpg
দ্বিতীয় দফায় ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর থেকেই রংপুরের পীরগাছা উপজেলার ইউনিয়ন গুলোতে চেয়ারম্যান পদে মনোনয়ন পেতে আওয়ামী লীগের নেতারা দৌড়ঝাঁপ শুরু করেছেন। তারা জেলা ও কেন্দ্রীয় পর্যায়ের নেতাদের সঙ্গে বিভিন্নভাবে যোগাযোগ করার চেষ্টা করছেন। একই সাথে উপজেলার জামায়াত-বিএনপিসহ জাতীয় পার্টির প্রার্থী ও সম্ভাব্য স্বতন্ত্র প্রার্থীরাও মাঠে সরব অবস্থানে রয়েছেন।

নির্বাচন কমিশনের ঘোষিত তফশীল অনুযায়ী চলতি বছলের ১১ নভেম্বর পীরগাছার ৯টি ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

তফসিল সূত্রে জানাযায়,মনোনয়নপত্র জমাদানের শেষ দিন আগামি ১৭ অক্টোবর। আর মনোনয়ন যাচাই-বাচাই ২০ অক্টোবর। প্রার্থীতা প্রত্যাহার ২৬ অক্টোবর এবং নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে চলতি বছরের ১১ নভেম্বর।

তফসিল ঘোষণার পর থেকেই উপজেলার, পারুল,ইটাকুমারী,অন্নদানগর, ছাওলা,তাম্বুলপুর, পীরগাছা, কৈকুড়ী ও কান্দি ইউনিয়ন থেকে আওয়ামী লীগের ৩৩ জন নেতা কর্মী মনোনয়ন পাওয়ার জন্য আবেদন করেছেন।

চেয়ারম্যান পদে একাধিক নেতা কর্মী আবেদন করায় এলাকায় ভোটারদের মাঝে এনিয়ে চঞ্চলতা সৃষ্ঠি হয়েছে। এছাড়াও মনোনয়ন প্রত্যাশীরা নৌকা প্রতীকে প্রার্থী হতে বিভিন্ন জেলা ও কেন্দ্রীয় নেতাদের দ্বারে দৌড় ঝাঁপ শুরু করেছেন।

পীরগাছা ইউনিয়ন ছাড়া বাকি ৭টি ইউনিয়নে একাধিক প্রার্থী থাকায় যাচাই-বাচাইয়ে চরম বেকায়দায় পড়েছেন দলটির নেতারা। এদিকে মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার আগে ভোটারদের কাছে ছুটছেন প্রত্যাশিত প্রার্থীরা।

পারুল ইউনিয়ন থেকে আবেদন করেছেন, বর্তমান চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ খাঁন, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি তোফাজ্জল হোসেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মো. মজনু মিয়া, ইটাকুমারী থেকে বর্তমান চেয়ারম্যান আব্দুল কাদের প্রধান, ইউনিয়ন সভাপতি মো. আশরাফুল ইসলাম, আবুল বাশার মিয়া। অন্নদানগর ইউনিয়ন থেকে বর্তমান চেয়ারম্যান মো. আমিনুল ইসলাম, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা মো. আনোয়ার হোসেন, মাহবুবার রহমান, মজিবর রহমান হংকন।

ছাওলা ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যানের ও আওয়ামীলীগের সভাপতি মরহুম আব্দুল হাকিমের পুত্র আতিকুর রহমান লিংকন, বাদল রহমান, মতিয়ার রহমান, দিপু হাসান, আব্দুস ছবুর আকন্দ, তাম্বুলপুর ইউনিয়ন থেকে বর্তমান চেয়ারম্যান রওশন জমির রবু সরদার, ইউনিয়নের সাধারন সম্পাদক মো. শাহিন সরদার, যাদব চন্দ বর্মন, জামাল বিএস, আবুল কালাম আজাদ খোকা, বিদুৎ কুমার, জাহিদুল ইসলাম।
পীরগাছা ইউনিয়ন থেকে মো. জাহাঙ্গীর আলম জালাল।

কৈকুড়ী ইউনিয়ন থেকে বর্তমান চেয়ারম্যান মো. শফিকুল ইসলাম লেবু, উপজেলার প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক শাহ শাহেদ ফারুখ, কোষাধ্যক্ষ আমিনুল ইসলাম (মো. সোহাগ মিয়া ), সাবেক ইউনিয়ন সভাপতি শহিদুল ইসলাম। কান্দি ইউনিয়ন থেকে বর্তমান মো. নজরুল ইসলাম খান, মো. মাহবুবুর রহমান ( সেফু) আমিনুল ইসলাম (আব্দুর রাজ্জাক), সাবেক সাধারন সম্পাদক ও আহসান হাবিব বাবু।

এ ব্যাপারে উপজেলাআওয়ামী লীগের সভাপতি মো. তছলিম উদ্দিন ও সাধারন সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ মিলন বলেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ একটি বড় দল, এ কারণে ইউপি নির্বাচনে একাধিক প্রার্থী। আমরা উপজেলা পর্যায়ে যাচাই-বাচাই করে জেলায় পাঠিয়ে দিয়েছি। কেন্দ্রীয়ভাবে প্রার্থীকে নির্বাচিত করে দলীয় মনোনয়নের সিদ্ধান্ত জানিয়ে দিবেন।

অপরদিকে জাতীয়পাটি থেকে ৮টি ইউনিয়নের মধ্যে ৩টি ইউনিয়নে প্রার্থী দেওয়া হবে বলে একটি সূত্রে জানা গেছে, এরা হলেন ইটাকুমারী থেকে সোহেল , পীরগাছা ইউনিয়ন জাপার সাধারন সম্পাদক শাহ রনজু মিয়া, কৈকুড়ী ইউনিয়ন জাপার সভাপতি নুর আলম মিয়া।

এছাড়াও বিএনপি নির্বাচনে অংশ না নিলেও একসূত্র জানা যায় , পারুল ইউনিয়ন থেকে যুবদলের উপজেলা আহবায়ক জাহাঙ্গির আলম, ইটাকুমারী ইউনিয়ন থেকে বিএনপি সভাপতি আলহাজ্ব আব্দুর রাজ্জাক, ছাওলা থেকে সাবেক চেয়ারম্যান বিএনপির উপজেলা সহ- সভাপতি আলহাজ্ব মো. নাজির হোসেন, তাম্বুলপুর ইউনিয়ন থেকে জামায়াতের উপজেলার আমীর বজলুর রশিদ মুকুল, পীরগাছা থেকে পীরগাছা ইউনিয়ন সভাপতি বর্তমান চেয়ারম্যান আলহাজ মোস্তাফিজার রহমান রেজা, কৈকুড়ী ইউনিয়নে জামায়াতের মো. শফিকুল ইসলম (মুকুল), কান্দি ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান বিএনপি নেতা আব্দুল কাদের সুজা মন্ডলসহ দলীয় প্রার্থী ছাড়াও আসন্ন ইউপি নির্বাচনে আরো অনেকে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করার সম্ভাবনা রয়েছে বলে সূত্রটি জানায়।