ENGLISH  |  ARABIC  |  NNBDJOBS  |  BLOG
ব্রেকিং নিউজ

এনএনবিডি ডেস্ক

২১ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২২:০৯

ই-কমার্স নিয়ন্ত্রণে নতুন আইন প্রণয়নে বৈঠক আগামীকাল

20738_ই- ১.jpg
ছবি- সংগৃহীত
ইভ্যালি ও ই-অরেঞ্জের মতো বিভিন্ন ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান গ্রাহকদের সঙ্গে প্রতারণা করায় মানুষের মাঝে ই-কমার্স নিয়ে আতঙ্ক সৃষ্টি হয়েছে। এই আতঙ্ক দূর করে মানুষের মাঝে স্বস্তি ফিরিয়ে আনতে ই-কমার্স নিয়ন্ত্রণে নতুন আইন প্রণয়ন করা হচ্ছে।
 
আগামীকাল বুধবার ই-কমার্স নিয়ন্ত্রণের বিষয়ে সরকারের চার মন্ত্রী সচিবালয়ে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে জরুরি বৈঠকে বসতে যাচ্ছেন।
 
ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান নিয়ে সরকারের ‘ডিজিটাল কমার্স পলিসি ২০১৮’ নামে একটি নীতিমালা করলেও সুনির্দিষ্ট কোনো আইন নেই। সেই জন্য ই-কমার্সের জন্য নতুন একটি আইন প্রণয়নের উদ্যোগ নিয়েছে। এর মাধ্যমে নিয়ন্ত্রণহীন ই-কমার্স সাইট শৃঙ্খলায় আনতে চায় সরকার।
 
পরিচালন নির্দেশিকা জারির পর সরকার এবার ই-কমার্স খাতের জন্য নতুন একটি আইন প্রণয়নের উদ্যোগ নিয়েছে। এর মাধ্যমে নিয়ন্ত্রণহীন এ খাতে কঠোর শৃঙ্খলা আনতে চায় সরকার। আইনটির নাম হতে পারে ‘ডিজিটাল ই-কমার্স অ্যাক্ট’।
 
বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশির সভাপতিত্বে বৈঠকে থাকবেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান, আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হক, তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী হাছান মাহ্মুদ।
 
সংশ্লিষ্টরা জানান, ই-কমার্স নিয়ন্ত্রণে এতোদিন নির্দেশনা থাকলেও প্রতারকচক্রের বিরুদ্ধ আইনি পদক্ষেপের জন্য সুনির্দিষ্ট কোনো শাস্তির কথা বলা হয়নি। ডিজিটাল বাংলাদেশে ই-কমার্স খাতের যত সম্প্রসারণ ঘটছে, তা নিয়ন্ত্রণের দুর্বলতাগুলো স্পষ্ট হচ্ছে। সেই সঙ্গে প্রতারণা বাড়ছে। এরই পরিপ্রেক্ষিতে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় খাতটির ওপর গ্রাহকের হারানো আস্থা ফেরাতে আইন তৈরির সক্রিয় চিন্তাভাবনা করছে।
 
এ প্রসঙ্গে বাণিজ্য সচিব তপন কান্তি ঘোষ বলেন, সম্প্রতি দেশে বেশকিছু ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠছে। গ্রাহকদের সঙ্গে প্রতিষ্ঠানগুলোর প্রতারণার অভিযোগও স্পষ্ট। ই-কমার্স খাতে প্রতারণার প্রবণতা ঠেকাতে আলাদা আইন হওয়া দরকার। সেই বিষয়ে মন্ত্রণালয় করণীয় ঠিক করতে সংশ্লিষ্ট অংশীজনদের সঙ্গে আলোচনা শুরু করেছে।