ENGLISH  |  ARABIC  |  NNBDJOBS  |  BLOG
সর্বশেষ:

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৩:০৯

মরক্কোর নির্বাচন : জনমতের প্রতিফলন হয়নি, দাবি পিজেডি ‘র

20687_620.jpg
উত্তর আফ্রিকার দেশ মরক্কোতে দীর্ঘদিন ক্ষমতাসীন থাকা জাস্টিস অ্যান্ড ডেভলপম্যান্ট পার্টি (পিজেডি) বলেছে, দেশটিতে সম্প্রতি অনুষ্ঠিত নির্বাচনে জনমতের কোনো প্রতিফলন হয়নি।

রোববার পিজেডির ন্যাশনাল কাউন্সিলের প্রকাশিত এক বিবৃতিতে এই কথা জানানো হয়। বিবৃতিতে বলা হয়, নির্বাচনের ফলাফলে মরক্কোর রাজনৈতিক মানচিত্র বা ভোটারদের স্বাধীন ইচ্ছার প্রতিফলন হয়নি।

এতে আরো বলা হয়, আইন পরিবর্তন, ভোটকেন্দ্রে নির্বাচনী আইন লঙ্ঘন ও ভোট কেনার মাধ্যমে নির্বাচন পদ্ধতির 'লঙ্ঘন' করা হয়েছে। মরক্কোর গণতন্ত্রের জন্য এই নির্বাচনের ফলকে 'বাধা' হিসেবে বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়।

পিজেডি বিবৃতিতে আরো জানানয়, অক্টোবরে তারা দলের সাধারণ কংগ্রেসের আয়োজন করবে, যাতে দলীয় নতুন নেতৃত্ব নির্বাচিত করা যায়।

এর আগে গত ৮ সেপ্টেম্বর মরক্কোতে সাধারণ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। পার্লামেন্টের ৩৯৫ আসনের নির্বাচনে প্রায় ১০ বছর ক্ষমতাসীন পিজেডি মাত্র ১৩টি আসনে জয়লাভ করে। এর আগের পার্লামেন্টে ইসলামপন্থী দলটির ১২৫টি আসন ছিলো।

এর বিপরীতে উদার ধারার ন্যাশনাল র‌্যালি অব ইন্ডিপেনডেন্টস (আরএনআই) ১০২টি, অথেনটিসিটি অ্যান্ড মর্ডানিটি পার্টি (পিএএম) ৮৬টি ও মধ্য-ডানপন্থী ইসতিকলাল পার্টি (পিআই) ৮১টি আসন লাভ করে।

নির্বাচনের পর ১০ সেপ্টেম্বর মরক্কোর বাদশাহ ষষ্ঠ মোহাম্মদ আরএনআই প্রধান আজিজ আখানুশকে সরকার গঠনের জন্য আহ্বান জানান।

মরক্কোতে সাংবিধানিক রাজতন্ত্র প্রতিষ্ঠিত, যেখানে বাদশাহ বিস্তৃত ক্ষমতার অধিকারী। রাষ্ট্রীয় বিষয়ে বাদশাহর মতামতই চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হিসেবে বিবেচিত হয়।

সাধারণ নির্বাচনে জয়ী দল থেকেই মরক্কোর বাদশাহ প্রধানমন্ত্রীকে নিযুক্ত করেন।

২০১১ সালে আরব বসন্তের প্রভাবে মরক্কোতেও বিবিধ দাবিতে বিক্ষোভ শুরু করে সাধারণ মানুষ। ওই সময় বাদশাহ ষষ্ঠ মোহাম্মদ শাসনতান্ত্রিক সংস্কারের এবং শাসনক্ষেত্রে জনগণের আরো সম্পৃক্ততার আশ্বাস দেন। পরে ওই বছরের অনুষ্ঠিত নির্বাচনে পিজেডি জয়লাভ করে।